আন্নির একগুচ্ছ কবিতা

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০১৮

শীতলিপি

গত শীতে শিউলির ঘ্রাণ নিছিলাম
এই শীতে খাব ভাপাপিঠা আর একটু বিয়ার।
ভীষণ আস্তিক এই শীত
আজানের মতো বুকে গিয়ে লাগে।
খুব পাপ পাপ মন নিয়ে
গলির মোড়ে গিয়া একটু গরম হয়ে আসবো
গরম জামা গায় দিয়ে বাইকে বসে
মনরে ধূলো খাওয়াবো, চিকেনও খাব
বিফ, সুগার আর কার্বোহাইড্রেট বাদ দিয়ে
গত শীত গরম ছিল, আগুনের পাশে যাইতে পারি নাই
এই শীতে আগুন হয়ে যাব, লোনা বরফ পানি হবে
হালকা মেজাজ আর শরীর হবে ভীষণ হাই
শীত কি জানে তার মর্ম আর আমার প্রেম
যা কেবলই আসে আর করে যাই যাই।

স্বচ্ছতারা

এই আজকের পরে
নদীর উপরে তারার মতো
দেখতে পাইবো তোমারে
পাইবো না ছুঁতে একটু বুকের কাছে।
জাহাজের কিনারে তোমার হাতের
এই স্পর্শ ধুয়ে যাবে বর্ষায়
আর তারাদের জলের স্বপ্নের মতো
ফিরে ফিরে আসবে আমার মনে।
কাশের বনে সকাল হবে
চাঁদ হয়ে আমি রাতের মায়া
ত্যাগে ব্যর্থ পাখির মতো
পড়ে রবো তোমার পাশের দূর দ্বীপে।
আমারে নিয়ো না বনে
পাহাড়ে, সমুদ্রে, কোলাহল বা নীরবতায়।
কেবল একটু রাখো
শেষবিকাল, খুবসকাল, অনেক দুপুর
বুকের লোমে, তোমার ঘামে
গভীর রাতে শীতের পাখির মতো
দূর হতে এসে জড়িয়ে নিয়ে
ভুলিয়ে দিয়ো, হারায়ে যেও
অল্পচেনা এই শহরে।

নাইট মেয়ার

আমার ভাঙা দরজায় হু হু করা বাতাস
মাংস বহুল হৃদয়ে বরফ কুচি হয়ে
চিরচির করে ফালফাল করে নিত্যরাতে
ভীষণ একলা করে ফেলে, আমি চোখ বুজে
প্রিয় ঘ্রাণ যে বুকের, তার টুকুর টুকুর তাল খুঁজি
ঘ্রাণ আসে যায় বাতাসের মতোই, ভাবি আমি
এত কাছে সে বুক আর সেখানেও এ বাতাস

প্রশান্তির দীর্ঘশ্বাসে শিউরে উঠি আমি
এই আঁধারের বাতাসে অধরা আমার ঘ্রাণময় তুমি!

রোবো বেইব

একটা রোবট কেনার আশায়
একটা মাটির ব্যাংক কিনি
জমাবো কয়েন আর অল্প বড় নোট
আর একটু একটু করে রোবট কিনবো
যখন থেইকা আমি আমারে বুঝি
তখন থেইকাই একটা রোবট আমি পুষি
মনে আর কি, একর্ডিং টু চয়েস
আলাগ দুনিয়াওইটা
মানে যেথায় কেবল একর্ডিং টু চয়েস
ওইখানে এই রোবট চলে
এইখানে তারে রোবট বলে
এমনভাবে যেন তা নাই কেবল নাই-ই
সবার মনেই রোবট আছে
এইটা তেমন খারাপ না, বাট খারাপও আছে
ওই খানের রোবট আর এই খানের রোবট
দ্বন্দ্ব করে, ধ্বংস করে
আঘাতে আঘাতে ভাঙি আমি
তবুও রোবটের আশায় মাটির ব্যাংক কিনি
টাকা জমাই একটা রোবট আত্মার লাগি
দিন রাত আমি রোবট মিলাই
এক দুই কইরা, সকাল বিকাল মিইলা
ইনসেন ওয়ার্ল্ড এ রোবট খুবই দামি
তাই আগে মাটির ব্যাংক কিনি।

ধারাবাহিক