শ্মশ্মান ঠাকুরের একগুচ্ছ কবিতা

প্রকাশিত : মে ২৪, ২০১৮

মধ্যবিত্ত

আমাদের পরিবার কখনো সমুদ্র দেখেনি,
অতল সমুদ্রে সংসার ভাসছিলো;
ভ্রমণ বিলাসী নই তবু পেটের চাবুক
আহার ছড়িয়ে রেখেছে পৃথিবীময়।

কখনো পাহাড়ে ওঠা হয়নি,
এমনকি,
কাঁধের পাহাড়টি কখনো ওজন করেননি বাবা।
তাই
সমগ্র ভূগোল ঘুরে বাজারের থলে ফেরে আর
রান্নাঘরে পৃথিবীর অর্থনীতি নতুন মোড় নেয়।

জৈবিক চিত্রকল্প: একশো সাত

নারীকে সন্তান জন্ম দিতে হয়,
তার প্রয়োজন ভবিষ্যত নিরাপত্তা এবং নিশ্চয়তা।
প্রকৃতি রক্ষার্থে তাকে স্বার্থপর এবং নিষ্ঠুর হতে হয়।

জৈবিক চিত্রকল্প: একশো ছয়

কেউ পাথর পূজা করে পবিত্র হয়
কেউ চুমু খেয়ে;
প্রাণবিহীন পবিত্র হয় না মন।

জৈবিক চিত্রকল্প: একশো তিন

খোদা, আমাকে পৃথিবীর উপকূল করেছেন
যেখানে তুমি পা ভিজিয়ে ক্লান্তি ধুয়ে ফেলতে পারো,
স্বর্গ সংসার নয়।

জৈবিক চিত্রকল্প: একশো

তোমাকে খুঁজতে গিয়ে দেখি—
গণিত মিলাতে উপকূলে হাঁটছেন পিথাগোরাস।

ধারাবাহিক