করোনা আপডেট
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ২৬৩৫০৩ ১৫১৯৭২ ৩৪৭১
বিশ্বব্যাপী ২০৫০৫১৪৪ ১৩৪২৭২৬৬ ৭৪৪৬৯১

`নো ল্যান্ডস ম্যান`-এ যুক্ত হলেন ফরিদুর রেজা সাগর

ছাড়পত্র ডেস্ক

প্রকাশিত : জুলাই ০২, ২০২০

আমেরিকা, ভারত এবং বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিতব্য ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’ চলচ্চিত্রে প্রযোজক হিসেবে যুক্ত হলেন ইমপ্রেস গ্রুপের ‘ফরিদুর রেজা সাগর’। এটি মোস্তফা সরয়ার ফারুকী’র পরিচালনায় প্রথম ইংরেজি ভাষার চলচ্চিত্র।

 

‘নো ল্যান্ডস ম্যান’ এর ৭০ ভাগ অংশের শ্যুটিং হয়েছে নিউ ইউর্কে গত বছরের নভেম্বর-ডিসেম্বরে। বাকী অংশের চিত্রায়ন হয়েছে অস্ট্রেলিয়া এবং ভারতে। এর মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন ভারতীয় অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী, বাংলাদেশের তাহসান খান এবং অস্ট্রেলিয়ার মেগান মিশেল।

 

নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী অভিনয়ের পাশাপাশি ছবিটি প্রযোজনাও করছেন। এই ছবিতে নওয়াজউদ্দীন সিদ্দিকী ছাড়াও প্রযোজক হিসেবে আগে থেকেই যুক্ত আছেন বাংলাদেশের স্কয়ার গ্রুপ-এর অঞ্জন চৌধুরী, অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা এবং আমেরিকান প্রযোজক শ্রীহরি সাঠে। এছাড়াও ছবিটিতে কো-প্রডিউসার হিসেবে যুক্ত আছে বঙ্গবিডি। সম্প্রতি অস্কার বিজয়ী এ আর রহমান ছবিটিতে প্রযোজক হিসেবে নাম লিখিয়েছেন এবং প্রযোজনার পাশাপাশি এই চলচ্চিত্রে তিনি মিউজিক ডিরেক্টর হিসেবেও যুক্ত আছেন।

 

ফরিদুর রেজা সাগরের প্রযোজনাতেই ফারুকী তার প্রথম সিনেমা `ব্যাচেলর` নির্মাণ করেন। এর পর `মেড ইন বাংলাদেশ`, `থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার`, এবং `পিঁপড়াবিদ্যা`তেও প্রযোজক হিসাবে ছিলেন ফরিদুর রেজা সাগর। ফারুকীর প্রথম আন্তর্জাতিক প্রযোজনায় যোগ দেয়ার বিষয়ে ফরিদুর রেজা সাগর বলেন, আমরা প্রথম থেকেই বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ ছবিগুলোর সাথে থাকার চেষ্টা করেছি। এটি ফারুকীর প্রথম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র। ইতিমধ্যেই মোশন পিকচার এসোসিয়েশন, অ্যাপসা, ফিল্ম বাজারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গা থেকে স্বীকৃতি পেয়েছে। ওর প্রথম ছবি থেকেই আমরা ওকে সমর্থন দিয়ে এসেছি। ফলে এবারো আমরা সাথে থাকবো এটাইতো স্বাভাবিক।

 

উল্লেখ্য, নো ল্যান্ডস ম্যান চলচ্চিত্রটি ২০১৪ সালে বুসান ফিল্ম ফেস্টিভালে এশিয়ান প্রজেক্ট মার্কেটে নির্বাচিত হয়। পরে ছবিটি মোশন পিকচার্স অ্যাসোশিয়েশন অফ আমেরিকা এবং এশিয়া প্যাসিফিক স্ক্রিন অ্যাওয়ার্ডসের ফিল্ম ফান্ড লাভ করে। এবং একই বছর ফিল্ম বাজার ইন্ডিয়াতে বেস্ট প্রজেক্ট হিসেবে পুরস্কৃত হয়। ছবিটি এখন পোস্ট প্রোডাকশনে আছে এবং ধারণা করা হচ্ছে এই বছরের শেষের মধ্যে ছবির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ শেষ হবে।