করোনা আপডেট
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৩৪৫৮০৫ ২৫২৩৩৫ ৪৮৮১
বিশ্বব্যাপী ৩০৩৭৫৩৯৭ ২২০৬০০১৬ ৯৫০৯৮৮

৬৮ কারাগারে নিরাপত্তা জোরদার

জঙ্গি হুমকি

ছাড়পত্র ডেস্ক

প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১৬, ২০২০

সারা দেশের ৬৮ কারাগারের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। কারা ফটকগুলোতে কারারক্ষী ছাড়াও পুলিশ ও র‌্যাব নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছে। সাদা পোশাকে রয়েছে গোয়েন্দারা।

চিঠি পাঠিয়ে ও ফোনে কারাবন্দি জঙ্গিদের ছিনিয়ে নেয়ার হুমকি দেয়ার পর কারা কর্মকর্তাদের সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বনের নির্দেশ দেন কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে এম মোস্তফা পাশা। রোববার ‘অতীব জরুরি’ হিসেবে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিয়ে কারা মহাপরিদর্শক এ চিঠি পাঠান।

এরপর সোমবার থেকেই পাল্টে যায় কারাগারের দৃশ্যপট। গড়ে তোলা হয়েছে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার কেরানীগঞ্জে গিয়ে দেখা গেছে, ফটকের সামনে সশস্ত্র অবস্থায় দায়িত্ব পালন করছে কারারক্ষীরা। দর্শনার্থীদের ক্ষেত্রে ছিল কঠোর সতর্কতা।

আশপাশে ছিল পুলিশের  অবস্থান। কারাগারের সংযোগ সড়ক থেকে শুরু করে টাওয়ার ও ফটকে রয়েছে কারারক্ষী ও পুলিশের অবস্থান। সীমানা প্রাচীরের বিভিন্ন স্থানে ৪০ ফুট চারটি পর্যবেক্ষণ টাওয়ার থেকে আশপাশের এলাকা নজরদারি করা হচ্ছে।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামাল বলেন, “পুলিশ নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সেখানে আগে থেকেই ৩০-৪০ জন পুলিশ সার্বক্ষণিক নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করতো। কারাগারের নিরাপত্তার জন্য সেখানে পুলিশের একটি ক্যাম্প রয়েছে। তারপরও হুমকির বিষয়টি জানার পর নিরাপত্তা আরো জোরদার করা হয়েছে।”

কারা মহাপরিদর্শকের নির্দেশনা অনুসারে বুলেট প্রুফ জ্যাকেট ও অস্ত্র নিয়ে ডিউটি করছে কারারক্ষীরা। এরই মধ্যে কারারক্ষী ও কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে স্ট্রাইকিং ফোর্স গঠন করা হয়েছে। সারা দেশের ৬৮টি কারাগারেই নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। কারা অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা প্রতিনিয়ত জেলা কারাগারের কর্মকর্তাদের সঙ্গে সমন্বয় করে নিরাপত্তা ব্যবস্থার খোঁজখবর রাখছে।

কারা সূত্রে জানা গেছে, ঢাকার বাইরে কাশিমপুর, লালমনিরহাট, ঠাকুরগাঁওসহ যেসব কারাগারে জঙ্গি, শীর্ষ সন্ত্রাসী রয়েছে সেসব কারাগারকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। সূত্রমতে, কয়েক দিন পূর্বে লালমনিরহাটের জেল সুপারের কাছে একটি চিঠি আসে। ওই চিঠিতে যে কোনো মূল্যে কারাগারে আটকে থাকা জঙ্গিদের ছিনিয়ে নেয়ার হুমকি দেয় দুষ্কৃতকারীরা। এমনকি চিঠির পরে অজ্ঞাত এক ব্যক্তি ফোন করেও একই হুমকি দেয়। পরে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়।