করোনা আপডেট
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৫৪৫৮৩১ ৪৯৬১০৭ ৮৪০০
বিশ্বব্যাপী ১১৪০০০৫৯৫ ৮৯৫৬৩৭৯৪ ২৫২৯৫৯৩

অভিনেত্রী মধুবালার আজ মৃত্যুদিন

ছাড়পত্র ডেস্ক

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২১

অভিনেত্রী মমতাজ জাহান দেহলভীর আজ মৃত্যুদিন। ১৯৬৯ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি তিনি মৃত্যুবরণ করেন। ১৯৩৩ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি দরিদ্র পরিবারে তার জন্ম। বাবা পাকিস্তানের পেশোয়ারে এক টোব্যাকো কোম্পানিতে চাকরি করতেন।

তার চাকরি চলে যাওয়ায় সংসারে অভাবের কারণে মধুবালা অভিনয়ে যোগ দেন। এগারো ভাইবোনের মধ্যে তিনি পঞ্চম এবং পাঁচজন মারা যায় খুব ছোটবেলায়। এরপর তার পিতা বোম্বে শহরে চলে আসেন।

মমতাজ জাহান নাম দিয়ে অভিনয় শুরু করলেও অভিনেত্রী দেবিকা রাণী তার নাম দেন মধুবালা। মধুবালা শিশুশিল্পী হিসেবে বলিউডে অভিনয় শুরু করলেও মূল নারী চরিত্রে অভিনয় শুরু করেন ১৪ বছর বয়সে কিদার শর্মার `নীলকমল` ছবিতে রাজকাপুরের নায়িকা হয়ে।

১৯৪৯ থেকে ১৯৬৪ সাল পর্যন্ত ২৯ বছরের অভিনয় জীবনে প্রায় ৭০টি চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেন। `মুঘল-ই-আজম` (১৯৬০) মধুবালার জীবনের শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র। মধুবালা ব্যক্তিগত জীবনে কয়েকবার সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন।

সে সময়ের জনপ্রিয় অভিনেতা দিলীপ কুমারের সাথে তার প্রেমকাহিনি বেশ সাড়া জাগিয়েছিল। পাঁচ বছর প্রেমের পর দিলীপ কুমার দুটো শর্ত দিয়েছিলেন মধুবালাকে। প্রথমত, নিজের পরিবার ছাড়তে হবে। দ্বিতীয়ত, ছাড়তে হবে অভিনয়ও।

বলিউড ছাড়তে রাজি হলেও নিজের মা-বাবাকে ছাড়তে নারাজ ছিলেন মধুবালা। এর পরই দিলীপ কুমার-মধুবালার সম্পর্ক ভেঙে যায়। এরপর `ঢাকে কি মালমাল` (১৯৫৬) ছবিতে বিখ্যাত গায়ক ও কমিডি কিং খ্যাত কিশোর কুমারের সাথে পরিচয় হয় এবং ১৯৬০ সালে তাকেই বিয়ে করেন। মধুবালা যতদিন জীবিত ছিলেন ততদিন তাদের দুজনের মধ্যে সম্পর্ক ছিল।

এছাড়া মধুবালাকে নিয়ে পরিচালক কিদার শর্মা, কামাল আমরোহী, প্রেমনাথ এবং পাকিস্তানি রাজনীতিবিদ জুলফিকার আলী ভুট্টোর প্রেমের গুজব ছড়িয়েছিল সে সময়।

মধুবালার হৃৎপিণ্ডে জন্মগত ছিদ্র ছিল। ১৯৫০ সালে এ সমস্যা ধরা পড়ে যার অধুনিক নাম ভেন্ট্রিকুলার সেফটাল ডিফেক্ট (ভিএসডি)। তখন ভারতে এর চিকিৎসা ছিল না। মধুবালার ক্যারিয়ারের স্বার্থে পরিবারের পক্ষ থেকেই অসুখটা তখন গোপন করা হয়।

কাজের চাপ আর বদ্ধ স্টুডিওয়ে দিনের পর দিন কাটাতে কাটাতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। শুটিং সেটে প্রায়ই অসুস্থ হয়ে পড়তেন। ১৯৬০ সালে কিশোর কুমারকে বিয়ের পর লন্ডন যান মধুবালা। কিন্তু চিকিৎসকরা জানিয়ে দেন, বড়জোর এক বছর বাঁচবেন তিনি। কিন্তু পরে আরো নয় বছর অসুখের সাথে লড়াই করে অবশেষে ১৯৬৯ সালে ২৩ ফেব্রুয়ারি ৩৬ বছর বয়সে তিনি মারা যান।

২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি তার ৮৬তম জন্মদিনে গুগল ডুডল তৈরি করে তাকে সম্মাননা প্রদান করে।