করোনা আপডেট
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৭৮০১৫৯ ৭২২০৩৬ ১২১৪৯
বিশ্বব্যাপী ১৬৩৭১৮২৯৮ ১৪২১৬৯০৫৭ ৩৩৯৩৩৩৫

কাল থেকে সব রকমের বিনোদন কার্যক্রম বন্ধ

ছাড়পত্র ডেস্ক

প্রকাশিত : এপ্রিল ১৩, ২০২১

লকডাউনে দেশের অন্য সবকিছুর মতো বিনোদনকেন্দ্রগুলোও বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ছোটপর্দার একাধিক অভিনয়শিল্পী ও নির্মাতা করোনায় আক্রান্ত। এর মধ্যে আছেন আবুল হায়াত, এসএম মহসীন, গাজী রাকায়েত, আফসানা মিমি, শহীদুজ্জামান সেলিম, আহসান হাবীব নাসিম, চয়নিকা চৌধুরী ও শামীম জামানসহ অনেকে।

তাদের বেশিরভাগই শুটিং স্পট থেকে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতেও অনেকেই শুটিং চালিয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছেন। কিন্তু করোনায় স্বাস্থ্যবিধি মানতে লকডাউন নিয়ে কঠোর হচ্ছে সরকার। এসেছে সর্বাত্মক লকডাউনের ঘোষণা। তাই ১০ মাস পর আবারও বন্ধ হতে যাচ্ছে ছোট পর্দার সব ধরনের শুটিং।

ছোটপর্দার সংগঠনগুলোর নেতারা জানিয়েছেন, শিগগিরই শুটিং বন্ধের নির্দেশনা জারি করা হবে। ডিরেক্টরস গিল্ডের সভাপতি সালাহউদ্দিন লাভলু বলেন, “সবার আগে বেঁচে থাকতে হবে। নিজেকে সুস্থ রাখাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। সরকার ১৪ এপ্রিল থেকে সর্বাত্মক লকডাউন দিয়েছে। সরকারের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করে আমরাও নোটিশ দিয়ে দেব যে, নাটকসংশ্লিষ্ট কোনো শুটিং হবে না।”

অভিনয়শিল্পী সংঘের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব নাসিম বলেন, “এখনই কাউকে শুটিং বন্ধ করতে বলা হচ্ছে না। তবে সংগঠন থেকে বারবার স্বাস্থ্যবিধি মানতে সতর্ক করা হচ্ছে। ছেন। শুটিংয়ে কোনোভাবেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হয় না। আবার স্বাস্থ্যবিধি না মানলে বিপদ। আর যেহেতু সরকারিভাবে সর্বাত্মক লকডাউন আসছে, তাই আমরাও শুটিং বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।”

এর আগে করোনা সংক্রমণের কারণে গত বছরের ২২ মার্চ থেকে ছোট পর্দার শুটিং স্থগিত করা হয়। দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর ১ জুন স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত পরিসরে শুটিং শুরু করেন নির্মাতারা। দীর্ঘদিন শুটিং বন্ধ থাকায় আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হন অভিনয়শিল্পী ও প্রযোজকরা। তবে শুটিং শুরু হলে আর্থিক ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে থাকেন তারা। এখন আবার সর্বাত্মক লকডাউন ঘোষণা হলে পরিস্থিতি কী হবে, তা নিয়ে প্রযোজকরা চিন্তিত।

গত বছরের মার্চে লকডাউনের সময় বন্ধ রাখা হয়েছিল সব ধরনের সিনেমার শুটিং। এবার ভাইরাসের সংক্রমণ আরও মারাত্মক। স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না কেউ। এরই মধ্যে শুটিং চালিয়ে যাচ্ছিলেন অনেকই। তবে সেটি আর হচ্ছে না। আবার বন্ধ করা হচ্ছে সিনেমার শুটিং। চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির নবনির্বাচিত কমিটির প্রথম সভায় শুটিং বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান বলেন, “সর্বাত্মক বলতে তো সব কিছুই বন্ধ বোঝায়। আমরা একাত্মতা প্রকাশ করি। লকডাউন ওঠে যাওয়ার পর আবারও পরিচালকরা শুটিংয়ে ফিরতে পারবেন। তবে বিষয়টি নিয়ে আজ ভার্চুয়াল মিটিং হবে আমাদের। সেখানেই সব কিছু স্পষ্ট করে জানানো হবে।”

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিবেশক সমিতির সহসভাপতি মিঞা আলাউদ্দিন বলেন, “সরকার ৫০ শতাংশ সিট ফাঁকা রেখে হল পরিচালনার কথা বলেছিল আগে। তবে এখন ৬৫ শতাংশ এমনিতেই ফাঁকা থাকে। কোনো হলে মানুষই আসে না। তাই লকডাউন হলে সব বন্ধ করে দেব। তবে সরকারি প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে, এখন আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেব।”

জানা গেছে, সরকার বা সমিতির বিধিনিষেধের আগেই দেশের বেশিরভাগ তারকা এরই মধ্যে শুটিং বন্ধ রেখে বাড়িতে অবস্থান করছেন। স্থগিত করেছেন পূর্বনির্ধারিত শুটিং শিডিউল। এর মধ্যে আছেন শাকিব খান, পরীমনি, সিয়াম ও পূজা চেরিসহ অনেকে।